NarayanganjToday

শিরোনাম

পঞ্চবটি-মুন্সিগঞ্জ সড়কে হচ্ছে চার লেনের উড়াল সেতু


পঞ্চবটি-মুন্সিগঞ্জ সড়কে হচ্ছে চার লেনের উড়াল সেতু

বহুকাক্ষিত স্বপ্নের পঞ্চবটি-মুক্তারপুর ফ্লাইওভার নির্মাণ হতে যাচ্ছে। ২ হাজার ৫শ কোটি টাকা ব্যয়ে চার লেনের উড়াল সেতু এবং চার লেনের সড়ক নির্মাণ করা হবে। একনেকের সভায় এই প্রকল্পটি প্রাক অনুমোদনের পর এর নকশা এর নকশা বুয়েট থেকে সম্পন্ন করা হয়েছে। এখন অপেক্ষা চূড়ান্ত অনুমোদনের।

এদিকে নকশা সক্রান্ত বিষয় নিয়ে মুন্সিগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জের দুই সাংসদ মৃণাল কান্তি এবং শামীম ওসমানকে নিয়ে সেতু ভবনে ১০ অক্টোবর সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেছেন সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়রুল ইসলাম। এতে আরও উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দীন, মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মুন্সিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পদ্মাসেতুর প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম, সেতু বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী কাজী মো. ফেরদৌস।

জানা গেছে, মুন্সিগঞ্জের মানুষের যাতায়াতের অন্যতম প্রধান সড়ক নারায়ণগঞ্জের পঞ্চবটি থেকে মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুর পর্যন্ত সড়কটি দীর্ঘদিন যাবত খানাখন্দে ভরে চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়ে। এছাড়া এ রাস্তায় সব-সময় যানজট লেগেই থাকে। এতে মুন্সীগঞ্জবাসীর যাতায়াতে দৈনন্দিন জীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠে। পঞ্চবটি ও মুক্তারপুর এই সড়কটি দিয়ে মুন্সিগঞ্জের লাখোলাখো মানুষ নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকা যাতায়াত করে থাকেন। প্রায়ই দিনই দুর্ঘটনা ঘটে থাকে বড় বড় গর্তে ভরা এই সড়কটিতে।

এই দুর্ভোগের চিত্র তুলে ধরে চলতি বছরের ২২ জুন সংসদে বক্তব্য রাখেন অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কাছে জাতীয় সংসদে বাজেটের উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে নারায়ণগঞ্জের পঞ্চবটি থেকে মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুর সেতু পর্যন্ত ফ্লাইওভার নির্মাণ অথবা সড়কটি সংস্কার করে চারলেনে রূপান্তর করে দেয়ার জন্য দাবি রেখেছিলেন।

মৃণাল কান্তির সেই দাবির প্রেক্ষিতে একনেকের সভায় ওই প্রকল্পটির প্রাক অনুমোদন লাভ করে। সেসময় এর জন্য জমি অধিগ্রণে ব্যয় ধরা হয় ১৮শ কোটি টাকা। যা বর্তমানে সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৫শ কোটি টাকা। আগামী বছর জানুয়ারিতে এই প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়রুল ইসলাম।

তিনি বলেন, নকশা নিয়ে দুই জেলার সংসদ সদস্য ও জেলা প্রশাসকদের সাথে সভা হয়েছে। প্রকল্প সম্পর্কে তাদের ধারণা দেওয়া হয়েছে। উপস্থাপিত নকশায় চরসৈয়দপুর এলাকায় যেখানে পঞ্চবটি থেকে ফ্লাইওভার এসে সড়কের সাথে মিশে যাবে সেখানে সামান্য জটিলতা দেখা দিয়েছে। এই মাসের মধ্যে সেখানে সেতুমন্ত্রী, সেতু সচিব ও দুই জেলার সংশ্লিষ্ট এলাকার সংসদ সদস্য সরেজমিন পরিদর্শন করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন। এরপরই নকশা অনুমোদন হবে এবং সকল দাপ্তরিক কাজ শেষে দরপত্র আহবান করা হবে।

অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস জানিয়েছেন, নারায়ণগঞ্জের পঞ্চবটি থেকে চর সৈয়দপুর নির্মাণাধীন শীতলক্ষ্যা সেতু পর্যন্ত এই ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হবে। এতে সবচেয়ে বেশি সুবিধা ভোগ করবে মুন্সিগঞ্জবাসী। এছাড়াও চর সৈয়দপুর থেকে মুক্তারপুর সেতু পর্যন্ত চারলেন সড়ক নির্মাণ করা হবে।

তিনি আরও জানান, চারলেন সড়কের জন্য জমি অধিগ্রহণে ১৮শ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। এই প্রকল্পটি একনেকে প্রাক অনুমোদন পেয়েছে। বর্তমানে বুয়েটে পুরো এই প্রকল্পের নকশার কাজ চলছে।

১২ অক্টোবর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে