NarayanganjToday

শিরোনাম

ফতুল্লার সেই ‘ব্রাজিল বাড়িতে’ উৎসবের আমেজ, সন্ধ্যায় বসবে মেলা


ফতুল্লার সেই ‘ব্রাজিল বাড়িতে’ উৎসবের আমেজ, সন্ধ্যায় বসবে মেলা

ফতুল্লার আলোচিত ‘ব্রাজিল বাড়ি’ উপর সচিত্র প্রতিবেদন করতে ঢাকায় এসেছেন ব্রাজিলিয় ৩ সাংবাদিক। তাঁরা ১৫ জুন ঢাকায় এসেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন ঢাকাস্থ ব্রাজিলীয় দূতাবাসের ডেপুটি হেড অব মিশন জুলিও সিজার সিলভা।

নারায়ণগঞ্জ টুডে’কে তিনি জানান, “ব্রাজিলের বিখ্যাত ‘গ্লোবো’ টেলিভিশন চ্যানেলের তিন সাংবাদিক বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা ঘুরে ঘুরে ব্রাজিল সমর্থকদের উন্মাদনা দেখবেন এবং সেসব ধারণ করে দেশটির ওই চ্যানেলে প্রচার করবেন।”

সিলভা আরও বলেন, “শুক্রবার (২২ জুন) ওই তিন সাংবাদিক যাবেন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় অবস্থিতি ‘ব্রাজিল বাড়ি’ পরিদর্শনে। বাড়িটির উপর সচিত্র প্রতিবেদন তৈরি করবেন তাঁরা। এবং এদিন সন্ধ্যায় শুরু হওয়া ব্রাজিল ও কোস্টারিকার খেলাটি এ বাড়িতেই উপভোগ করবেন ওই তিন সাংবাদিক। তাঁরা ২৫ জুন দেশে ফিরে যাবেন।”

ব্রাজিলের ফ্যান কার্ড নিয়ে ১৩ জুন ব্রাজিলের উদ্দেশ্যে রওনা হন ‘ব্রাজিল বাড়ি’র মালিক জয়নাল আবেদীন টুটুল। তিনি সেখানে ১৭ জুন ব্রাজিল ও সুইজারল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচটি উপভোগ করেন। এসময় ব্রাজিল ফুটবল দলের এই ‘পাগলা ফ্যানের’ গায়ে জড়ানো ছিলো বাংলাদেশের লাল-সবুজের পতাকা।

টুটুল ১৯ জুন দেশে এসে পৌঁছান। ২২ জুন তাঁর বাড়িতে ব্রাজিলের রাষ্টদূত, ব্রাজিলিয় তিন সাংবাদিকসহ একটি প্রতিনিধি দল আসবেন।

প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার লালপুর এলাকায় জয়নাল আবেদীন টুটুলের মালিকানাধীন বাড়িটি দেশজুড়ে ফুটবলভক্তদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলে। ৭ তলা বাড়িটির পুরোটাই সুশোভিত হয়েছে ব্রাজিলের পতাকার রঙে। বাড়ির ছাদে উড়ছে বড় বড় পতাকা। বাড়ির প্রধান ফটকে লেখা রয়েছে ‘ব্রাজিল-বাড়ি’।

বাড়ির ভেতরটাও ব্রাজিলের পতাকার রঙে রাঙানো। ড্রইং রুমে রয়েছে ব্রাজিলের বিভিন্ন তৈজসপত্র ও স্যুভেনির। ব্রাজিলের কিংবদন্তি খেলোয়াড়দের পোস্টার টাঙানো বাড়ির দেয়ালজুড়ে। রয়েছে ব্রাজিলের পতাকার বাঁধাই করা ফটোফ্রেমও।

নোয়াখালীর ছেলে টুটুল একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করেন। ফুটবল খেলার প্রতি ভালোবাসা এবং ব্রাজিল দলের প্রতি একনিষ্ঠ সমর্থন থেকেই নিজের বাড়ির নাম রেখেছেন ব্রাজিল বাড়ি।

ব্রাজিল বাড়ির মালিক জয়নাল আবেদীন টুটুল বলেন, ফুটবল খেলার প্রতি যেমন ভালোলাগা রয়েছে তেমনি ব্রাজিল দলের প্রতি ভালোবাসা রয়েছে। সেই প্রিয়দলের বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা দেখতে রাশিয়ায় যেয়ে আমি খুবই আনন্দিত।

আরও পড়ুন :
বিশ্বকাপ মাঠে লাল-সবুজের পতাকা গায়ে ফতুল্লার সেই টুটুল

২০ জুন, ২০১৮/এসপি/এনটি

উপরে