NarayanganjToday

শিরোনাম

রাজপথ কাঁপিয়ে জাকির খান সমর্থকরা বললেন, খালেদার জন্য জীবন দিতেও রাজি


রাজপথ কাঁপিয়ে জাকির খান সমর্থকরা বললেন, খালেদার জন্য জীবন দিতেও রাজি

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আবারও রাজপথ কাঁপিয়েছে জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি জাকির খানের কর্মী সমর্থকরা। দিবসটি উপলক্ষে সোমবার (১৬ ডিসেম্বর) সকালে প্রায় কয়েক হাজার নেতাকর্মী নিয়ে শহরে বিশাল শোডাউন করে জাকির খান সর্মথিত মহানগর বিএনপি, জেলা যুবদল, ছাত্রদল, মহানগর ছাত্রদল ও মহানগর মৎস্যজীবী দল সহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

জাকির খানের উদ্যোগে আয়োজিত এ র‌্যালিতে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে সোমবার সকাল থেকেই বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা ছোট বড় মিছিল নিয়ে দেওভোগ আখড়ার মোড় এলাকায় জড়ো হতে থাকে। সকল নেতাকর্মীরা জমায়েত হওয়ার পর সেখান থেকে কয়েক হাজার নেতাকর্মী নিয়ে বের করা হয় মহান স্বাধীনতা দিবসের বর্ণাঢ্য র‌্যালি। এসময় র‌্যালিতে বাধঁভাঙ্গা জনস্রোত নগরবাসীকে তাক লাগিয়ে দেয়।

র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে চাষাঢ়াস্থ বিজয়স্তম্ভে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় র‌্যালিতে থাকা নেতাকর্মীদের ‘আজকের এ দিনে জিয়া তোমায় মনে পড়ে, স্বাধীনতার ঘোষক জিয়া লও লও লও সালাম’  সহ খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবির স্লোগানে স্লোগানে মুখোরিত হয়ে উঠে গোটা শহর। পরে সেখানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে লাখো শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

এসময় সংক্ষিপ্ত এক সমাবেশে নেতাকর্মীরা বলেন, এই সরকার দমন পীড়নের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে কলুষিত করে তুলেছে। সম্পূর্ণ অবৈধ উপায়ে নির্বাচিত এই সরকার ক্ষমতা হারানোর ভয়ে আমার নেত্রী খালেদা জিয়াকে জামিন পাওয়া সত্ত্বেও কারাগারে আটকে রেখেছে। সম্পূর্ণ নির্দোষ তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে এভাবে আটকে রাখার নজির পৃথিবীতে বিরল।

তারা বলেন, আমাদের নেতা জাকির খান ইতিমধ্যেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে বলেছেন। তিনি বলেছেন, দেশমাতার মুক্তির জন্য যদি জীবনও দিতে হয়, পিছপাঁ হবেন না। কেননা, পিছন ফিরে তাকানোর আর সময় নেই।যেভাবেই হোক এ জাতিকে গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিতে হবে। আর তার একমাত্র পথ হচ্ছে দেশনেত্রীর মু্িক্ত। আপনারা মাঠে থাকেন, রাজপথে থেকে ঐক্যবদ্ধভাবে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলুন।’

বক্তারা আরও বলেন, আমরা জাকির খানের কর্মী মরতে ভয় পাইনা। আমাদের নেতা ভীরু কাপুরুষ নয়, ইতিহাসে তার স্বাক্ষি রয়েছে। সুতরাং যতই হামলা মামলা দেয়া হউক না কেন আমরা দেশনেত্রী মুক্তির আন্দোলনে মাঠে আছি, থাকবো। রাজপথের কঠিন আন্দোলন করেই নেত্রীকে মুক্ত করে নিয়ে আনবো, ইনশাল্লাহ্।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব মো: আমিনুল ইসলাম, মহানগর মৎস্যজীবী দলের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম রতন, বন্দর থানা বিএনপির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মহিউদ্দিন শিশির, জেলা যুবদলের সহ সভাপতি পারভেজ মল্লিক, সহ সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শাহ্, জেলা ছাত্রদল এর যুগ্ম সম্পাদক রাকিব হাসান রাজ, মহানগর ছাত্রদল এর যুগ্ম লিংক  রাজ খাঁন ও ইব্রাহিম বাবু, মহানগর মৎস্যজীবী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক লিংকন খাঁন ও ঋষিকেশ মন্ডল মিঠু, শফিজ উদ্দিন , এডঃ রাজিব মন্ডল,মোঃ হালিম,দীন ইসলাম শান্ত সদস্য - মোঃ খবির, ইমরান হোসেন, লিয়ন খাঁন, মোঃ রুবেল, বকুল বর্মন, মোঃ বিল্লাল জেলা মৎস্যজীবী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক, এইচ এম হোসেন, মোঃ ফাহিম হোসেন, মফিজ মহি,রিপন সিকদার, মহানগর ছাত্রদল এর সহ সাংগঠনিক সম্পাদক বিল্লাল হোসেন নয়ন, স্কুল বিষয়ক সম্পাদক ইরফান ভূইয়া, জেলা ছাত্রদল নেতা নয়ন তালুকদার, সায়েদ হোসেন সাব্বির, সাকিব হাসান রাজ, ইয়াছিন সরদার পলাশ নারায়ণগঞ্জ জেলা শহীদ জিয়া ছাত্র পরিষদ এর সভাপতি শাওন মোহাম্মদ জিসান, সাধারণ সম্পাদক আসিফ প্রধান, সিনিয়র সহ সভাপতি জহিরুল ইসলাম ভূইয়া, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আরিফুল ইসলাম রাজ, যুগ্ম সম্পাদক, জাকারিয়া আহাম্মদ অনিক, ইয়াসিন আরাফাত, রাহাত, রিদয়, ইসমাঈল বাবু, সিফাত, সাইফুল, মহানগর প্রজন্ম একাত্তর এর সহ সভাপতি গোলাপ আহাম্মেদ, ডালি সুমন, যুগ্ম সম্পাদক মানিক হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, আয়নাল হক, সমাজ কল্যান সম্পাদক নাসির, সহ সমাজ কল্যান সম্পাদক রায়হান, সদর থানা মৎসবীজি দলের আহ্বায়ক সাখাওয়াত হোসেন জ্যাকি, সদর থানার সদস্য সচিব আহাম্মদ আলী, বন্দর উপজেলা মৎসবীজি দলের আহ্বায়ক নিজাম উদ্দিন ভূইয়া, সদস্য সচিব মোঃ শফিউল্লাহ,বন্দর থানা মৎসবীজি দল নেতা সাখাওয়াত হোসেন পিংকি, আব্দুল্লাহ আল মামুন, মোঃ সোহেল প্রমূখ।

১৬ই ডিসেম্বর, ২০১৯/এমবি/এইচ

উপরে