NarayanganjToday

শিরোনাম

অবশেষে বন্দরে এসেছেন আযহারী, সতর্ক পুলিশ


অবশেষে বন্দরে এসেছেন আযহারী, সতর্ক পুলিশ

বন্দরে এসেছেন আলোচিত সমালোচিত ইসলামী বক্তা ড. মিজানুর রহমান আযহারী। বৃহস্পতিবার (১৯ ডিসেম্বর) রাত আটটার কিছু সময় আগে তিনি উপজেলার মুছাপুর এসে পৌঁছান। রাত ৯ টা থেকে তিনি এখানে একটি ওয়াজ মাহফিলে বয়ান করবেন।

এদিকে মিজানুর রহমান আযহারীর আগমন নিয়ে বন্দরে তামিম বিল্লাহর নেতৃত্বে ওলামাদের একটি পক্ষ ব্যাপক বিরোধীতা করে। তারা তার আগমন নিষিদ্ধের দাবিতে ঝাড়– মিছিলসহ স্মারকলিপিও দিয়েছে।

এমন বিরোধীতার কারণে উভয় পক্ষের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে সার্বিক দিক বিবেচনায় স্থানীয় থানা পুলিশ বন্দরে আযাহারীর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। তবে, শেষতক বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে সাংসদ সেলিম ওসমানের হস্তক্ষেপের কারণে পুলিশ এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে শর্তসাপেক্ষে তাকে আসার অনুমতি দেন।

বন্দর থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, আযহারীর আগমনকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হলে আমরা তার আসার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করি। তবে, স্থানীয় মানুষের অনুরোধে কিছু শর্ত সাপেক্ষে আযহারীকে আসার অনুমতি দিয়েছি আমরা।

ওসি বলেন, তার বিরোধীতা করে ওলামাদের একটি পক্ষ আন্দোলন করছিলেন। তাদের দাবি ছিলো, মিজানুর রহমান আযহারী তাদের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রদান করেন। কিন্তু আজ মিজানুর রহমান আযহারীকে আসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে এমন শর্তে যে, তিনি আসবেন ইসলামের কথা বলবেন কোনো রকম উস্কানিমূলক বক্তব্য রাখতে পারবেন না।

তিনি আরও জানান, এরপরও পুলিশ সতর্ক অবস্থানে থাকবে। কোনো ধরণের অপ্রীতিকর অবস্থা কোনো ভাবেই প্রশ্রয় দেওয়া হবে না।

বন্দরের মুছাপুর পশ্চিমপাড়া জামে মসজিদ যুব সংগঠন ও এলাকাবাসীর উদ্যোগে তাফসিরুল কুরআন ওয়াজ ও দোয়ার মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। এই ওয়াজে মিজানুর রহমান আযহারীর বক্তব্য রাখবেন। এই ওয়াজ মাহফিলে অতিথি হিসেবে রাখা হয়েছে মুছাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেন। তিনি দুর্ধর্ষ রাজাকার রফিক চেয়ারম্যানের ছেলে।

এদিকে আযহারীর আগমন ঠেকাতে ১৭ ডিসেম্বর মাওলানা তামিম বিল্লাহর নেতৃত্বে মিজানুর রহমান আযহারীকে ফেরাউনের ভাতিজা ও নব্য রাজাকার আখ্যায়িত করে তার আগমন ঠেকাতে উপজেলায় ঝাড়– মিছিল, মানবন্ধনসহ থানায় স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৯/এসপি/এনটি

উপরে